About

উত্তরা কাজী অফিস গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইন মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত একটি প্রতিষ্ঠান। ১৯৯০ সালে এটি অনুমদন প্রাপ্ত হয়। আমরা অত্যন্ত যোগ্যতা দক্ষতার সাথে বিবাহ্ সম্পর্কিত সকল কাজ সম্পন্ন করে আসছি ।বিবাহ্তালাক ছাড়াও স্বামীস্ত্রী সহ বিদেশে বসবাসের জন্য অথবা দেশে অবস্থানরত স্বামীস্ত্রীকে বিদেশে নেওয়ার জন্য পররাষ্ট্র আইন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী অসংখ্য ম্যারেজ সার্টিফিকেট সফলতার সাথে প্রদান করে অগনিত প্রবাসী ভাইদের প্রসংশা পাচ্ছি। তাই আপনাদের সংক্রান্ত প্রয়োজনে আমাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন।

বিবাহে/তালাকে করণীয়ঃ

মুসলিম বিবাহ আইন অনুসারে মেয়ের বয়স ন্যূনতম ১৮ বছর ছেলের বয়স ন্যূনতম ২১ বছর হতে হয়। বিয়ের সময় ছেলেমেয়ে উভয়ের বয়স প্রমাণের জন্য অবশ্যই জন্ম নিবন্ধন/জাতীয় পরিচয়পত্র/পাসর্পোট/শিক্ষগত সার্টিফিকেট প্রদর্শণ করতে হবে। ছেলে মেয়ে  উভয় পক্ষের জন করে প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তিকে সাক্ষী একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তিকে মেয়ের পক্ষ থেকে বিবাহে উকিল হিসেবে বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন ফরমে তাদের নাম, ঠিকানা উল্লেখপূর্বক স্বাক্ষর করতে হয়। তবে উকিলের বিষয়টি বাধ্যতামূলক নয়, থাকলে ভাল হয় আর না থাকলে তেমন কোন অসুবিধা হয় না।

উত্তরা কাজী অফিসে বিবাহ বন্ধনের পাশাপাশি যদি কোন অনাকাঙ্খিত কারণে বিবাহ বন্ধন বিচ্ছেদের প্রয়োজন হয়, তাহলে সে ব্যবস্থাও রয়েছে। ছেলে যদি মেয়েকে তালাক দিতে চায় তাহলে সর্বপ্রথমে মেয়েকে লিখিতভাবে নোটিশ প্রদান করতে হবে। এরপর মেয়ে যে এলাকায় বসবাস করেন সে এলাকার সিটি কর্পোরেশনের/পৌরসভা/ইউনিয়ন পরিষদকে নোটিশের মাধ্যমে জানাতে হবে। উপরোক্ত কার্যক্রম সঠিকভাবে সম্পন্ন হওয়ার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে ক্ষেত্রবিশেষে ১০০ দিনের মধ্যে তালাক প্রক্রিয়া কার্যকর হয়। বিবাহের মতো তালাকের ক্ষেত্রেও সাক্ষী থাকতে হয়।

অগ্রীম বুকিং :

কাজী অফিসে বিবাহ পড়ানোর পাশাপাশি নির্ধারিত এলাকায় অবস্থিত বিভিন্ন বাসা কমিনিউটি সেন্টারে বা পার্টি সেন্টারেও আয়োজিত বিবাহ অনুষ্ঠানে গিয়ে বিবাহ সম্পাদন করা হয়। তবে এক্ষেত্রে টেলিফোনে বা স্বাক্ষাতের মাধ্যমে যোগাযোগ করে সময় ঠিকানা বা ফোন নাম্বার জানাতে হবে। যাতে যথা সময়ে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়া যায় বিবাহ বা তালাক রেজিষ্ট্রেশন করা যায়।

টেলিফোন বা মোবাইলে বিবাহ সম্পাদন :

আমাদের উত্তরা কাজী অফিসে টেলিফোন মোবাইলে বা সরাসরি ভিডিও কলের মাধ্যমে বিবাহ সম্পাদন করা হয়। তবে ক্ষেত্রে বর কনে যে বিদেশে থাকে তার পক্ষে নির্ধারিত নিযুক্ত অভিবাবক কে ক্ষমতা প্রদান করতে হবে। যাতে নিযুক্ত অভিবাবকের ক্ষমতা বর কনের ক্ষমতা বলে গন্য হবে।